sa.gif

নির্মাণশিল্পের নারী শ্রমিকেরা সমস্যায় জর্জরিত
আওয়াজ প্রতিবেদক :: 12:13 :: Thursday March 8, 2018 Views : 50 Times

আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে নির্মাণশিল্পে নারী শ্রমিকদের সমস্যা নিয়ে গোলটেবিল আলোচনায় নির্মাণশিল্পের নারী শ্রমিকেরা কতটা খারাপ অবস্থায় আছেন, তা তুলে ধরেন নারী শ্রমিকসহ বিভিন্ন পর্যায়ের ব্যক্তিরা। একজন আলোচক উপস্থিত শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হককে অনুরোধ করেন অন্তত ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবসে যেন কয়েকজন নারী পরিদর্শক পাঠিয়ে নির্মাণশিল্পের নারী শ্রমিকদের সমস্যা দেখে আসেন। সঙ্গে সঙ্গেই প্রতিমন্ত্রী মোবাইলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে পাঁচটি নারী পরিদর্শকের দল পাঠানোর নির্দেশ দেন। শুধু তাই নয়, পরিদর্শনে যদি দেখা যায় শ্রম আইন মানা হচ্ছে না, তাহলে যেন সঙ্গে সঙ্গে মামলা করা হয়। আলোচকেরা প্রতিমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, এভাবে ব্যবস্থা নিতে পারলে ইতিবাচক পরিবর্তন আসবে।

প্রথম আলোর উদ্যোগে ও সেভেন রিংস সিমেন্টের সহযোগিতায় আজ বুধবার বিকেলে কারওয়ান বাজারে প্রথম আলো কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয় ‘নির্মাণশিল্পে নারী শ্রমিক’ শীর্ষক এই গোলটেবিল।

গোলটেবিল বৈঠকে যোগ দিয়ে সরকারের প্রতিনিধি, স্থপতি, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, নারী সাংবাদিক, নির্মাণ খাতের শ্রমিক সংগঠনের নেতা, আবাসনশিল্পের মালিক থেকে শুরু করে বিভিন্ন পর্যায়ের ব্যক্তিরা নির্মাণশিল্পে নারী শ্রমিকদের পদে পদে সমস্যা হওয়ার কথা তুলে ধরে সমাধানেরও পরামর্শ দেন। সঞ্চালনা করেন প্রথম আলোর সহযোগী সম্পাদক আব্দুল কাইয়ুম।

সেভেন রিংস সিমেন্টের সহযোগিতায় প্রথম আলো আয়োজিত ‘নির্মাণশিল্পে নারী শ্রমিক’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক। প্রথম আলো কার্যালয়, কারওয়ান বাজার, ঢাকা, ৭ মার্চ। ছবি: আবদুস সালাম
সেভেন রিংস সিমেন্টের সহযোগিতায় প্রথম আলো আয়োজিত ‘নির্মাণশিল্পে নারী শ্রমিক’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক। প্রথম আলো কার্যালয়, কারওয়ান বাজার, ঢাকা, ৭ মার্চ। ছবি: আবদুস সালাম

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় শ্রম প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক বলেন, নির্মাণশিল্পেও পুরুষদের পাশাপাশি নারীরা কাজ করছেন। তবে যাঁরা কাজ করান তাঁদের এখনো দৃষ্টিভঙ্গিগত সমস্যা আছে। অনেকে মনে করেন নারীর শ্রমের মূল্য কম, নারীরা আন্দোলনসহ সমস্যার সৃষ্টি করবেন না।

সেভেন রিংস সিমেন্টের সহযোগিতায় প্রথম আলো আয়োজিত ‘নির্মাণশিল্পে নারী শ্রমিক’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে বক্তারা। প্রথম আলো কার্যালয়, কারওয়ান বাজার, ঢাকা, ৭ মার্চ। ছবি: প্রথম আলো
সেভেন রিংস সিমেন্টের সহযোগিতায় প্রথম আলো আয়োজিত ‘নির্মাণশিল্পে নারী শ্রমিক’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে বক্তারা। প্রথম আলো কার্যালয়, কারওয়ান বাজার, ঢাকা, ৭ মার্চ। ছবি: প্রথম আলো
স্থপতি ইকবাল হাবিব বলেন, নির্মাণ খাতেও উন্নত কর্মপরিবেশ (কমপ্লায়েন্স) নিশ্চিত করতে হবে।

সেভেন রিংস সিমেন্টের প্রধান বিপণন কর্মকর্তা আসাদুল হক সুফিয়ানী চারটি সমস্যা তুলে ধরে বলেন, নির্মাণশিল্পে কাজ ও দক্ষতা অনুযায়ী কর্মী নিয়োগের ব্যবস্থা নেই। এটা করলে এমনিতেই অনেক সমতা হয়ে যাবে। দ্বিতীয়ত, কাজ ও গ্রেড অনুযায়ী মজুরি নির্ধারণ হলে বৈষম্য থাকবে না। তৃতীয়ত, যেখানে কাজ হচ্ছে তার সুযোগ-সুবিধা দেখতে হবে। চতুর্থত, এ খাতে বিধিবিধানের বিষয়ে সবাই খুব উদাসীন।

নির্মাণ খাতের শ্রমিকদের জন্য আলাদা পোশাকের ওপর গুরুত্বারোপ করেন বিল্ডিং টেকনোলজি অ্যান্ড আইডিয়া লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এফ আর খান।

রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড হাউজিং অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (রিহ্যাব) সভাপতি আলমগীর শামসুল আলামিন বলেন, রিহ্যাবের সদস্যদের আগামীকালই বলে দেওয়া হবে, উন্নয়নকাজ শুরুর সঙ্গে সঙ্গেই যেন নারী শ্রমিকদের জন্য পৃথক শৌচাগারের ব্যবস্থা করেন।

১৫ থেকে ২০ বছর ধরে নির্মাণশিল্পে কাজ করেন ফরিদা খাতুন। গোলটেবিলে যোগ দিয়ে তিনি বলেন, কাজের ফাঁকে বিশ্রাম নেওয়ার জন্য কখনো আলাদা জায়গা পাননি, আলাদা বাথরুমও থাকে না। কাজ শেষে মজুরির জন্যও অপেক্ষায় থাকতে হয়। আবার যে মজুরি দেওয়া হয়, সেটাও প্রাপ্য মজুরির চেয়ে কম।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উইমেন অ্যান্ড জেন্ডার স্টাডিজ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক তানিয়া হক বলেন, নারী শ্রমিকেরা দুই ধরনের বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন। প্রথমে তাঁরা শ্রমিক হিসেবে এবং দ্বিতীয়ত নারী শ্রমিক হিসেবে। কাজের মজুরির ক্ষেত্রেও তাঁরা বৈষম্যের শিকার হন। কারণ নারীর দর-কষাকষির শক্তি কম। ফলে তাঁরা মজুরির ক্ষেত্রে ছাড় দেন। শ্রমিকেরা কর্মক্ষেত্রে গালাগালের শিকার হন।

গোলটেবিলে আরও বক্তব্য দেন বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব লেবার স্টাডিজের নির্বাহী পরিচালক সৈয়দ সুলতান উদ্দিন আহমেদ, ইমারত নির্মাণ শ্রমিক ইউনিয়নের (ইনসাব) মহিলা সম্পাদক মোসা. সায়েরা খাতুন, বাংলাদেশ নারী সাংবাদিক কেন্দ্রের সভাপতি নাসিমুন আরা হক, মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীন নারী নির্যাতন প্রতিরোধকল্পে মাল্টি সেক্টরাল প্রোগ্রামের জ্যেষ্ঠ কর্মসূচি কর্মকর্তা সাবিনা সুলতানা, সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী ফাহমিদা হক খান, আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার কর্মসূচি কর্মকর্তা সৈয়দা মুনীরা সুলতানা, ইনসাবের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক।
সূত্র প্রথম আলো



Comments





Pakkhik Sramik Awaz
Reg: DA5020
News & Commercial:
85/1 Naya Paltan, Dhaka 1000
email: sramikawaznews@gmail.com
Contact: +880 1972 200 275, Fax: +880 77257 5347

Legal & Advisory Panel:
Acting Editor: M M Haque
Editor & Publisher: Zafor Ahmad

Developed by: Expert IT Solution